রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম - ৩টি নিয়ম জেনে নিন

আজকে আমার আলোচনার বিষয় হচ্ছে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম সম্পর্কে আপনাদেরকে অবগত করে দেওয়া। সাথে রেজিস্ট্রেশন এর ৩ টি পদ্ধতি জানিয়ে দেওয়া

    রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম - ৩টি নিয়ম জেনে নিন

    আমরা অনেকেই নতুন সিম রেজিস্ট্রেশন করতে চাই। তবে রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম আমাদের জানা নেই। তাই আজকে আমার আলোচনার বিষয় হচ্ছে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম সম্পর্কে আপনাদেরকে অবগত করে দেওয়া। 

    আজকের আলোচনা সম্পূর্ণ পড়লে আপনারা রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। এই রেজিস্ট্রেশন কিভাবে করতে হয়, কোথায় করতে হয় এবং করার জন্য কি কি প্রয়োজন পড়ে সবগুলো বিষয় জানিয়ে দেওয়া হবে। সবার আগে মনে রাখবেন বাংলাদেশে সিম রেজিস্ট্রেশন করার তিনটি নিয়ম রয়েছে। 

    1. জাতীয় পরিচয় পত্র বা NID কার্ডের মাধ্যমে। 
    2. জন্ম নিবন্ধন বা বার্থ সার্টিফিকেট এর মাধ্যমে। এবং 
    3. পাসপোর্ট এর মাধ্যমে। 

    উপরের এই তিনটি মাধ্যমের যেকোনো একটি মাধ্যমে আপনি নিজের রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। তবে সবচেয়ে কার্যকরী এবং দীর্ঘমেয়াদী পদ্ধতি হচ্ছে এনআইডি কার্ডের মাধ্যমে নিজের সিম রেজিস্ট্রেশন করা। 

    এতে আপনি দীর্ঘ সময় ধরে সেই সিমটি ব্যবহার করতে পারবেন। তো চলুন জেনে নেয়া যাক এই রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া কিরূপ।

    রবি মিনিট অফার ৩০ দিন ২০২৩

    রবি মিনিট চেক কোড ২০২৩

    বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার নিয়ম

    NID দিয়ে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম

    এনআইডি দিয়ে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার জন্য আপনাকে নিজের পার্শ্ববর্তী কোন রবি সিমের কাস্টমার কেয়ার বা রবি সিমের অফিসে যেতে হবে। সাথে করে নিজের জাতীয় পরিচয় পত্র বা এনআইডি কার্ড নিয়ে যেতে হবে। এরপর নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন। 

    • সেখানে গিয়ে রবি সিম কোম্পানির কর্মীকে বলুন আপনি নতুন সিম রেজিস্ট্রেশন করতে চান। 
    • তিনি আপনাকে সিমের নাম্বার বাছাই করতে বলবেন। 
    • তার দেওয়া নাম্বারগুলো হতে যে কোন একটি নাম্বার বাছাই করুন। 
    • এরপর আপনার NID Card তাকে দিন। 
    • এক্ষেত্রে আপনার ফিঙ্গারপ্রিন্ট প্রয়োজন পড়বে। 
    • রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার জন্য সর্বোচ্চ ২০০ টাকা পর্যন্ত নিতে পারে। 
    • তাকে টাকা বুঝিয়ে দিয়ে নিজের সিম নিয়ে নিন।
    • সেখানে মোবাইলে সিমটি ঢুকিয়ে চেক করে নিন সিমের কানেকশন ঠিক আছে তো। 
    • এখন আপনি এনআইডি কার্ড দিয়ে নিজের নতুন রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করতে সফল হয়েছেন।

    জন্ম নিবন্ধন দিয়ে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম

    সব জায়গায় জন্ম নিবন্ধন দিয়ে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করা সম্ভব নয়। আপনার শহরে যদি রবি কাস্টমার কেয়ারের মূল অফিস থেকে থাকে তাহলে আপনি সেখানে যান। অর্থাৎ ছোট কোনো রবি অফিসে না গিয়ে সরাসরি মূল কাস্টমার কেয়ারে যান। 

    যেটি আপনার শহরে অবস্থিত। সেখানে গিয়ে বলুন আপনার এনআইডি কার্ড এখনো হয়নি আপনি নিজের বার্থ সার্টিফিকেট বা জন্ম নিবন্ধন দিয়ে একটি নতুন রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করতে চাচ্ছেন। সাথে করে নিজের জন্ম নিবন্ধন নিয়ে যেতে হবে। এরপর পরের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

    • তাকে বলুন আপনি বার্থ সার্টিফিকেট দিয়ে নিজের একটি রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করতে চাচ্ছেন। 
    • নিজের জন্ম নিবন্ধন কাগজ তাকে দিন। 
    • এরপর আপনাকে সিমের নম্বর বাছাই করতে দেওয়া হবে। 
    • তার দেওয়া নাম্বার থেকে যেকোন একটি নাম্বার বাছাই করে নিন। 
    • জন্ম নিবন্ধন দিয়ে সিম রেজিস্ট্রেশন করার জন্য কোন ফিঙ্গারপ্রিন্ট এর প্রয়োজন পড়ে না। 
    • এরপর সর্বোচ্চ ২০০ টাকা খরচ হতে পারে। তাকে টাকা বুঝিয়ে দিন। 
    • আপনি যেদিন এই সিমটি কিনবেন সেদিন থেকে মোট ছয় মাস পর্যন্ত এই সিমের মেয়াদ থাকবে। 
    • ছয় মাসের মধ্যে আপনি যদি কোন এনআইডি কার্ডে এই সিমটি ট্রান্সফার না করেন তাহলে ছয় মাস পর আপনার সিমের মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। 
    • এখন আপনি নিজের জন্ম নিবন্ধন দিয়ে সফলভাবে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করতে পেরেছেন।

    পাসপোর্ট দিয়ে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম

    পাসপোর্ট দিয়ে সিম রেজিস্ট্রেশন করা আরেকটি জটিল প্রক্রিয়া। আপনার কাছে যদি কোন এনআইডি কার্ড বা জন্ম নিবন্ধন না থাকে কেবলমাত্র তবে আপনি পাসপোর্ট দিয়ে রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করুন। 

    তবে শর্ত হচ্ছে পাসপোর্ট আপনার হতে হবে বা যার পাসপোর্ট হবে তাকে সাথে যেতে হবে। এরপর নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন 

    • পাসপোর্ট দিয়ে সিম রেজিস্ট্রেশন কেবলমাত্র বিমানবন্দর এই সম্ভব।
    •  আপনার আশেপাশে যদি কোন বিমানবন্দর থেকে থাকে তাহলে আপনাকে বিমানবন্দরে যেতে হবে। 
    • সেখানে অনেকগুলো সিম কোম্পানি রয়েছে আপনি সেখানে রবি সিম কোম্পানির লোকের কাছে গিয়ে বলবেন পাসপোর্ট দিয়ে একটি রবি সিমের রেজিস্ট্রেশন করে দিতে।
    • নিজের পাসপোর্ট তাকে দেবেন। 
    • আপনাকে নাম্বার বাছাই করতে বলবে। 
    • এরপর যদি ফিঙ্গার প্রিন্ট দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে তাহলে ফিঙ্গারপ্রিন্ট দিন। আর না হলে এভাবেই রেজিস্ট্রেশন করে নিন। 
    • যেহেতু পাসপোর্ট দিয়ে সিম রেজিস্ট্রেশন করছেন এক্ষেত্রে ব্যয় কিছু বেশি হতে পারে। 
    • তার টাকা তাকে বুঝিয়ে দিন এবং সিম নিজের হাতে নিয়ে নিন। 
    • মোবাইলে সিম ঢুকিয়ে কানেকশন চেক করে নিন। 
    • পাসপোর্ট দিয়ে আপনার রবি সিম রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হলো।

    উপসংহার

    আশা করছি আজকের পোস্ট আপনার জন্য সহায়ক হয়েছে। পোস্টটি উপকারী মনে হলে আপনার বন্ধু-বান্ধবদের সাথে শেয়ার করে দিন। অনুমান করছি যে আপনি রবি সিম রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম জেনে গিয়েছেন। 

    এর সাথে রেজিস্ট্রেশন এর ৩ টি পদ্ধতি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে । আপনি এ সকল তথ্য প্রতিনিয়ত আমাদের ওয়েবসাইট থেকে পেতে থাকবেন। এছাড়াও কোনো কিছু বুঝতে কষ্ট হলে কমেন্ট করে জানাবেন। আমি সম্পূর্ণ চেষ্টা করব আপনার সকল প্রশ্নের জবাব দেওয়ার।

    LikeYourComment