খালি পেটে শসা খাওয়ার উপকারিতা-শসা খেলে কি হয়

খালি পেটে শসা খাওয়ার ফলে কি গটে আমাদের শরিলে তা জানার জন্য আনার এই পোষ্টি দেখুন তা হলে অনেক উকার হবে। কেননা এখানে খালি পেটে শসা খাওয়াার উপাকারিতা

    মনে হয় না এমন কোনো লোক পাওয়া যাবে যে কখনো শসা খায়নি। শসা স্বাস্থ্যর জন্য অনেক কার্যকার এটি আমরা অনেক ভাবে ব্যবহার করতে পারি । বিভিন্ন ভাবে এটি আমরা সেবন করে থাকি । 

    ওজন কমানোর জন্য অনেকেই শুধু শসা খেয়ে থাকেন অনেকেই অনেক  সালাত বানিয়ে ও খেয়ে থাকেন । এটি রুপচর্চা জন্য ও ব্যবহার করে থাকে অনেকেই। অনেকেই আবার তিসনা মিটানোর জন্য ও খেয়ে থাকেন শসা।’


    আপনি এটি খেয়াল রাখছেন যে অতিরিক্ত শসা স্বাস্থ্যর জন্য কতটা ভালো । আপনি ওজন কমানোর জন্য কি শুধু শসা খাচ্ছেন। এমন অনেকেই আছেন সারা দিনে কোনো ধরনের খাবার না খেয়ে খালি শসা খায় এটি তাদের শরিলের জন্য কতটা ক্ষতিকর তা কি সে জানে।

     

    শসার পুষ্টিগুন দেখুনঃ

    শাসার পুষ্টিগুন ,ভিটামিন বি১, ফাইবার থিয়ামিন বি ১, প্রোটিন, রাইবোফ্লাবিন বি ২, ভিটামিন সি, ভিটামিন কে , প্যানটোথেনিক  বি৫ বি৬ , গুলোকোজ, স্নেপদার্থ ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম লোহা,ম্যাঙ্গনিজ,সোডিয়াম , নিয়াসিন বি৪, রয়েছে আরো বিভিন্ন ধরনের খনিজ  দব্র, পটাসিয়াম, দস্তা,ফোলেট বি৯, ক্যালোরি ২০ % ( ১০০ গ্রামে) শসায় বেশির ভাগ বয়েছে পানি।

    অন্য বিষয়

    থাইরয়েড হলে কি বাচ্চা হয় না জানতে ক্লিক করুন

    থাইরয়েড হরমোন কমানোর উপায় জানতে ক্লিক করুন

    থাইরয়েড টেস্ট খরচ কত জানতে ক্লিক করুন

    থাইরয়েড টেস্ট রিপোর্ট জানতে ক্লিক করুন

    থাইরয়েড টেস্ট কিভাবে করে জানতে ক্লিক করুন

    ব্যাংক চেক লেখার নিয়ম জানতে ক্লিক করুন

    মেয়েদের ডান চোখ লাফালে কি হয় এবং ইসলামি  ভাবে কি তা জানতে ক্লিক করুন

    চোখের জন্য কোন লেন্স ভালো জানতে ক্লিক করুন

    প্রস্রাব ধরে না রাখার কারণ,প্রস্রাব ধরে রাখার উপায় জানতে ক্লিক করুন

    বিবাহ রেজিস্ট্রেশন ফরম ছবি,অনলাইনে বিবাহ রেজিস্ট্রেশন যাচাইম জানতে ক্লিক করুন

    খালি পেটে শসা খাওয়ার উপকারিতা,শসা খেলে কি হয়



    খালি পেটে শসা খাওয়ার উপকারিতা-শসা খেলে কি হয়

    খালি পেটে  শসা খেতে হলে তা জুস করে খাওয়া ভালো । সকালে প্রথমে পানি খেয়ে তার পর আপনি সশার জুস খেতে পারবেন । পানি খাওয়ার পর আপনার শসার রসের সাথে লেবু মিসিয়ে খাবেন যা আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে। 

     খালি পেটে অন্যান্য উপাদান এর সাথে শসা শিশিয়ে  সালাদা বানিয়েও খাওয়া যেতে পারে কিন্ত সাকলে ভোরে অন্যান্য নাস্তায় বা খাবারে না খেয়ে শুধুমাত্র শসা খেলে তা আমাদেরর লো ব্লাড প্রেসার এর জন্য অনেকটাই দায়ী হতে পারে। অনেক সময় তা অনেকের স্বাস্থ্যর জন্য ক্ষতির কারনক হয়ে দারায় । 


    শসা খালি পেটে খাওয়ার উত্তম উপয় হলো আগে পানি খেয়ে তার পর শসা খাবেন । কারন পানিতে কোনো ধরনের সাইডিফেক নাই তাই এটি আপনার কোনো ধরনের ক্ষতি করবে না । কিন্তু শসা খেলে   এটি আপনার নানা ধরনের ক্ষতি করতে পারে ।

     তাই এটি  খালি পেটে বেশি দিন না খাওয়াই উত্তম । আপনি প্রতিদিন খালি পেটে কুসুম গরম পানি এক বা দুই গ্লাস খেতে পারেন যা আপনার জন্য স্বাস্থ্যর জন্য উপকার হবে। 


    শসা কখনোই ওজন কমানোর জন্য বেশি খাবেন না। এমন লোক আছে যারা ওজন কমানোর জন্য এত বেশি শসা খায় যে খিদে পেলেই শসা খেয়ে নেয় যার ফলে তাদের নান ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। যারা সকালে কি খাবে ভাবচ্ছন তার নিচের লিংঙ্ক গিয়ে দেখতে পারেন আপনি সকালে খালিপেটে কি খাওয়ার আপনার জন্য উত্তম। 

    দেখুন শসা খাওয়ার উপকারিতা 

    শসা ‍ সারা  পৃথিবীতে উৎপাদনের দিক দিয়ে চথুর্ত স্থানে রয়েছে।


    ধরুন আপনি এমন কোনো স্থানে আছেন সেখানে পানি নেই কি করবে তখন। কিন্তু শসা আছে আপনার কাছে বড় একটা শসা খেয়ে নিন আপনার পানির ক্লান্তি দূর হয়ে যাবে। আপনি যদি দূরে কথাও যান তহলে শসা নিয়ে যাবেন আপনার পানির অভাব ও দূর হবে সাথে পানার পেট ও ভরে যাবে । শসা আপনার পেট ঠান্ডা রাখবে যার ফলে আপনি স্ততি বধ করবেন ।

     অনেকেই আছেন যে ভ্রমনে কিছ খেতে পারেনা ঐ সমস্ত মানুষ সাথে শসা রাখতে পারেন যার আপনার উপকারে আসবে। শসাতে বেশির ভাগ পানি থাকে প্রায় ৯০ শতাংপানি থাকে শসাতে। 


    কখনো কখনো আপনি শরিলের ভিতরে ও বাহিরে উততাপ অনুভব করনে ঐই অবস্থায় একটি শসা খেয়ে নিন। যদি আপনার ত্বক জ্বালা অনুভব করেন তাহলে আপনি ঐই স্থানে শসা গোল করে কেটে ত্বকের উপরে রাখুন বা শসা আপনার ত্বকে ঘসে নিন যার ফলে আপনার ত্বকের জ্বারা দূর হয়ে যাবে।


    শসার ভিতরে থাকা পানি দেহের নান ধরনের বর্জ্য  এবং ক্ষতিকারক পদার্থ দেহ কথেকে বের করে দেয়  যা আপনার রক্তকে পরিষ্কার করে এবং এটি আলসার ,গ্যাসট্রাইটিস, এসিডিটির  সমস্যা থেকে ও মুক্তি পেতে অনেক সাহয্য করে।


    শসার মধ্য যে পানি থাকে যা আমাদের দেহের ভিতরে যে দূষিত বদ্র পদার্থ থাকে তা দূর করে দেয়। সারা দিনে বাহিরে থাকার ফলে যে আমাদের দেহে নান ধরনে দূষিত পদার্থ আমাদের শরিলে প্রবেশ করে তা খুব সহসে শরির থেকে বাহির করে দেয়  এই শসা ।

     এবং কি সারা দিনে যে আমাদের শরিরে টাকসিন তৈরি হয় শরিলের ভিতরে তা বাহিরে বের করে দেয় এই শসা।


    দাউদ এক্সিমার মতো ত্বকের নানা সমস্যা থেকে সমধারনের জন্য শসা একটি খু্বই কার্যকর উপাদান এটি দাউদ এক্সিমার নিরসনে অনেক ভালো ভুমিকা রাখে।


    আপনি যদি নিয়মিত শসা থেতে পারেন তাহলে কিডনিতে জমে থাকা পাথর ও গলে যায় ।প্রতিনিয় চলার জন্য যে ভিটামিন আমাদের দেহে দরকার আর অনেক ভাগই এই শসার মধ্যে রয়েছে। 

    শসার ভিতরে কি ভিটামিন থাকে

    ভিটামিন এ , ভিটামিন বি , ভিটামিন সি , এগুলো আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমাতা  বাড়ায় । সবুজ শাক ও গাজরের সাথে শসা পিষে খেতে পারলে এর উপকারিতা বহুগুনে বৃদ্ধি পায়। এবং এই তিন ধরনের ভিটামিন ঘটতিও দূর হবে। 


    শসায় উচ্চ পরিমান ,পটাসিয় ,ম্যাগনেসিয় ,সিলিকন থাকে যা আপনার ত্বকের পরিচর্যায় বিশেষ ভূমিকা রাখবে। এজন্য ত্বকের পরিচর্চায় গোসলের আগে ব্যবহার করতে পাবেন। 


    শসায় উচ্চ পরিমানে পানি থাকে এবং নিম্ন পরিমানে ক্যাররি থাকে যা আপনার ওজন কমতে সাহয্য করবে ওজন কমানোর জন্য শসা একটি আদর্শ। যার ওজন কমতে চান তারা বেশি পরিমান ছুপ ও সালাতে সশা ব্যবহার কতে পারেন।


    কাচা শাস চিবিয়ে খেলে হজম শক্তি অনেক বৃদ্ধি করে এবং হজমের জন্য ও কাযকর হিসেবে কাজ করে এই সশা। প্রতিনিয়ত শসা খেলে কষ্ঠকাঠিন দূর হয় দীর্ঘ দিন যাবত কষ্ঠিকিঠিন ও দূর হয়। 


    রুপ চার জন্য অনেকেই সশা গোর করে কেটে চোখের পাতার উপরে বসিয়ে রাখেন। যার ফলে চোখের জ্যোতি ও বাড়ায় এবং চোরে ময়র ও দূর হয়।ছানি পড়া ঠেকাতেও কাজ করে এটি।


    শাসয় সিকোসিলিওশন  লেরিসিলিওকিসন ও পিনরেসিলন এই তিন টি উপদান থাকেও আয়র বেদিক উপদান থাকে এটি জরায়ু ও মূত থলিতে ক্যানসার প্রতিরোধে ও এটি ভালো কাজ করে। কারন  এই তিন উপদান  ক্যান্সার ‍উপসারনে কাজ করে।


    ডায়াবেটিস থেকে মুক্তি দেয় এটি ,কোলেস্টেরল কমায় ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রনে রাখে । দূর্গন্ধ দূর করে । মুখের ভিতরে থাকা ব্যকট্রেরিয় ও বজ্র পদার্থ দূর করে এটি। একটি শসা গোল করে কেটে এর এক টুকরো অথবা আধা টুকরো ভিহবাহে উপরে রেখে দিন ।

     যার ফলে মুখে  থাকা সব ধররেন বজ্র পদার্থ দূর হয়ে যাবে।  যা আপনার মুখ কে দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি দিবে।  

    আসা করি আপনারা   বিষয় গুলো বুঝতে পেরেছেন এই পোষ্টে আলোচনা করেছি খালি পেটে শসা খাওয়ার উপকারিতা । এবং আরো আলোচনা করেছি শসা খেলে কি হয়। আসা রাখি বিষয় গুলো বুঝতে পেরেছেন।

    এই অয়েব সাইটে প্রতিনিয় আনারা নানা ধরনের তথ্য মূলক পোষ্ট পাওয়ার জন্য এই অয়েব সাইটের সঙ্গেই থাকুন তাহলে আপনার খুব সহজে নানা ধরনে র তথ্য মূলক পোষ্ট পেয়ে যাবেন। এবং আপনারা আপনাদের প্রয়োজন অনুসারে কমেন্ট করতে পারেন।

    LikeYourComment